পুঁজিবাজার থেকে সরকারের রাজস্ব কমেছে ৮২ কোটি টাকা

0

স্টকরিপোর্ট প্রতিবেদক : বিদায়ী অর্থবছরে আগের বছরের তুলনায় পুঁজিবাজার থেকে ৮২ কোটি ৬৩ লাখ টাকা রাজস্ব বঞ্চিত হয়েছে সরকার। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসইর তথ্য মতে, ২০২২ সালের জুলাই থেকে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত ডিএসইতে মোট ২৪১ কর্মদিবসে লেনদেন হয়েছে। এই সময়ে এক লাখ ৯১ হাজার ৮৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার কেনা-বেচা করেছেন বিনিয়োগকারীরা। এ লেনদেনের ওপর কমিশন থেকে উৎসে কর বাবদ সরকার পেয়েছে ২৭৬ কোটি ৬৬ লাখ ৪৬ হাজার ৯২৮ টাকার রাজস্ব।

এর আগের বছর অর্থাৎ ২০২১-২২ সালের একই সময়ে ডিএসইতে ২৪০ দিবসে মোট লেনদেন হয়েছিল তিন লাখ ১৮ হাজার ৭৫৪ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। সেখান থেকে সরকারের রাজস্ব আয় হয়েছিল ৩৫৯ কোটি ৩০ লাখ ৩৭ হাজার ১৮২ টাকা। অর্থাৎ আগের বছরের চেয়ে ৮২ কোটি ৬৩ লাখ ৯০ হাজার ২৫৪ টাকা রাজস্ব কমেছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বছরজুড়ে দরপতন অব্যাহত থাকায় বিদায়ী বছরে ডিএসইর লেনদেন কমেছে এক লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকার বেশি। আর লেনদেন কমায় কর বাবদ ৮২ কোটি টাকার বেশি রাজস্ব বঞ্চিত হয়েছে সরকার। লেনদেনের কমার পেছনে বেশিরভাগ শেয়ার ফ্লোর প্রাইসে আটকে থাকাকে দায়ী করেছেন তারা।

তারা বলছেন, বাজার ভালো হলে লেনদেন বাড়বে। তখন সরকারও এ খাত থেকে রাজস্ব আরও বেশি পাবে।

ডিএসইর সর্বশেষ তথ্য মতে, ৪০৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২১০ থেকে ২১৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার, মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট ও বন্ড ফ্লোর প্রাইসে অবস্থান করছে।

আয়কর অধ্যাদেশ অনুযায়ী, দুই ধরনের শেয়ার কেনা-বেচা থেকে সরকার রাজস্ব আয় করে। প্রথমটি হলো, কোম্পানির উদ্যোক্তা-পরিচালকদের শেয়ার কেনা-বেচা থেকে রাজস্ব আয়। দ্বিতীয়টি হলো, বিনিয়োগকারীদের শেয়ার কেনা-বেচায় ব্রোকারেজ হাউজের ওপর আরোপিত কর।

ডিএসইর তথ্য মতে, দুই ধরনের করের মধ্যে প্রথমটি হলো– ৫৩ বিধি ধারা। এই ধারায় ডিএসইর স্টেক হোল্ডারদের অর্থাৎ ব্রোকার হাউজের প্রতিনিধিদের লেনদেনের ওপর কর দশমিক ৫ শতাংশ। এ খাত থেকে গত ১২ মাসে রাজস্ব আয় হয়েছে ১৯২ কোটি ৫৭ লাখ ৪ হাজার ৭৫১ টাকা। আগের বছরের একই মাসে এই রাজস্ব আয় ছিল ২৮৬ কোটি ৪২ লাখ ৭৮ হাজার ৩৮৫ টাকা।

অন্যদিকে, বিএসইসি রুলস ৫৩-এম অনুসারে স্পন্সর শেয়ারহোল্ডারদের শেয়ার কেনা-বেচা বাবদ লেনদেন ও শেয়ার হস্তান্তর থেকে ৫ শতাংশ হারে কর বাবদ রাজস্ব আয় হয়েছে ৮৪ কোটি ৯ লাখ ৪২ হাজার ১৭৭ টাকা। ২০২১-২২ সালের একই সময়ে এই রাজস্ব আয় ছিল ৭২ কোটি ৮৭ লাখ ৫৮ হাজার ৭৯৭ টাকা। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় উদ্যোক্তা-পরিচালকদের শেয়ার বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে। ফলে সরকার এ খাত থেকে আয়ও বেশি করেছে।

সব মিলিয়ে ডিএসই থেকে বিদায়ী বছরে সরকারের রাজস্ব আয় হয়েছে ২৭৬ কোটি ৬৬ লাখ ৪৬ হাজার ৯২৮ টাকা। এই টাকা সরকারের কোষাগার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) জমা দিয়েছে ডিএসই।

Leave A Reply

Your email address will not be published.